ভিডিও এর মাধ্যমে ইনকাম করুন – বিস্তারিত বাংলা আর্টিকেল।

0
1391
ভিডিও এর মাধ্যমে ইনকাম

সবাইকে আজকের আর্টিকেলে শুভেচ্ছা ! আজকের আর্টকেল এর টপিক হলো – ভিডিও এর মাধ্যমে ইনকাম! বিস্তারিত জানতে আমার আর্টিকেল টি পড়তে পারেন। আমি চেষ্টা করেছি বিস্তারিত একটি স্বচ্ছ ধারনা দেওয়ার।

আপনি যদি আমাকে প্রশ্ন করেন , সত্যিই কি ভিডিও এর মাধ্যমে ইনকাম  করা যায় ? আমি বলবো হ্যা , অবশ্যই যায়। এখন আসুন বিস্তারিত একটু বকবক করি। বকবক বললাম কারণ আমি তো আপনার সাথে বকবক করার মাধ্যমেই  বুঝানোর চেষ্টা করি। তো চলুম শুরু করি এবার বিস্তারিত।

অনলাইন থেকে ইনকাম – সত্যিই কি সম্ভব? Info Here…

কিভাবে শুরু করব – ভিডিও এর মাধ্যমে ইনকাম?

শুরু করার জন্য আপনাকে আগে জেনে নিতে হবে যে আপনি কোন কাজ বা কোন বিষয়ে খুব ভালোভাবে অন্যকে বুঝাতে পারেন বা অন্যের মনোযোগ আকৃষ্ট করতে পারেন ।

আমি প্রথমে ধরে নিলাম আপনি যে কোন পার্টিকুলার কোন বিষয়ে খুব ভালো অন্যকে বুঝাতে পারবেন। আর সেই পার্টিকুলার বিষয় আমি ধরে নিচ্ছি আপনি ডিজাইন খুব ভালো পারেন।

অর্থাৎ আপনি ফটোশপ, ইলাস্টেটরের কাজ খুব ভালো পারেন। আর এই কাজ গুলো আপনি অন্য কোন পারসোন কেও বুঝাতে পারবেন। এখন আপনি ইচ্ছে করলে অনলাইনেও মানুষকে এই কাজ গুলো ভিডিওর মাধ্যমে বুঝাতে পারবেন।

এই টেকনোলজির যুকে আপনাকে বুঝাতে হবেনা যে আপনি কোন মাধ্যমে ভিডিও বানিয়ে অনলাইনে মানুষকে আপনার নলেজ শেয়ার করতে পারবেন।

আপনি বুঝেই গেছেন যে ইউটিউব হলো আপনার জন্য সবচেয়ে ভালো মাধ্যম। ইউটিউবে সার্চ দিলেই মিলিওন ভিডিও পাবেন এই ফটোশপ আর ইলাস্টেটর এর।

মাঝে মাঝে আপনি নিজেও অনেক ডিজাইন এই ইউটিউব দেখেই শিখেছেন , হয়তো তখন মাথায় আসেনি যে আপনিও এভাবে অন্যদের কে ভিডিওর মাধ্যমে শিখাতে পারেন।

ইউটিউব চ্যানেল নিয়ে কিছু কথা

আপনার টপিক ঠিক হলো আপনি ফটোশপ নিয়ে ভিডিও বানাবেন এবং ইউটিউবে আপলোড দিবেন। আর মানুষ আপনার ভিডিও দেখে ফটোশপ/ইলাস্টেটর এর কাজ শিখতে পারবে। এখন প্রশ্ন হলো নতুন অবস্থায় আপনি চ্যানলে কিভাবে সাজাবেন বা প্রতিদিন কয়টা ভিডিও আপলোড দিবেন।

চ্যানেল কিভাবে খুলবেন বা সাজাবেন এই নিয়ে যত প্রশ্ন আপনার মনে আসবে আপনি সেই প্রশ্ন গুলো ইউটিউবের সার্চ বক্সে করুণ আর উত্তর গুলো ভিডিও আকারে দেখে নিন এবং সব কিছু খুব ইজিলি শিখে নিন। আর প্রতিদিন আপনি কয়টা ভিডিও আপলোড দিবেন সেটা নির্বর করে একান্তই আপনার উপর।

আপনি যদি ইচ্ছে করেন যে আপনি প্রতিদিন ২ টা করে ভিডিও আপলোড দিতে পারবেন তাহলে প্রতিদিন যেন দুইটা ভিডিও সব সময় আপলোড দিয়ে যান। কারন ইউটিউব সিডিউল ব্যাপারটা খুব লাইক করে ভিডিওর রেঙ্কিক এর ক্ষেত্রে।

তবে আমার সাজেশন থাকবে প্রতিদিন একটি করেই ভিডিও আপলোড দিয়ে যান এর বেশি দেওয়ার দরকার নেই। এভাবে প্রতিনয়ত করে যেতে পারলে আপনিও একটা সময় ভিডিও এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন, যার কোন নিদির্ষ্ট সীমা নেই। ভালো একটা পজিশনে আসতে পারলে হিউজ ইনকাম আসবে এটাই সত্যি!

ফিউচার নেট ডট ক্লাব কি? Info Here…

ভিডিও এডিটিং নিয়ে কিছু কথা

আপনি সব কিছু ঠিকঠাক করলেন। কি নিয়ে ভিডিও বানাবেন কোন প্লাটফর্মে ভিডিও আপলোড দিবেন সব কিছুই ওকে। বাট আপনি জানেন না একটা ভিডিও ইউটিউবে আপলোড দেওয়ার আগে কিভাবে এডিট করে দিলে আপনার ভিডিও গুলো খুব ভালো রেংঙ্ক করবে। আপনাকে এডিটিং অবশ্যই ভিডিও আপলোড দেওয়ার আগেই শিখে নিতে হবে।

এখন কিভাবে শিখবেন ? এই প্রশ্ন আমাকে কেন করছেন , আবার এই প্রশ্ন ইউটিউব সার্চ বক্সে করুন এবং খুব সুন্দর উত্তর পেয়ে যাবেন। তবে আমি একটু সহজ করে দিচ্ছি। ভিডিও এডিক মোটামুটি ভালোভাবে করার জন্য ক্যামতেসিয়া সফটওয়ার এর কাজ শিখে নিলেই যথেষ্ট।

তাই আপনি ক্যামতেসিয়ার কাজ গুলো ইউটিউবে সার্চ দিয়ে শিখে নিবেন। ক্যামতেসিয়ার কথা বলে দিলাম কারন সবচেয়ে সহজ ক্যামতেসিয়ার মাধ্যমে খুব ভালো মানের ভিডিও এডিটিং শিখা। আশাকরি আমার এই কথাটা আপনার কাজে দিবে।

ক্যামতেসিয়ার কথা এই জন্যই বলে দিলাম যে , আপনারা ইউটিউবে অনেক অনেক সফটওয়ার দিয়ে ভিডিও এডিট করার টিউটোরিয়াল পাবেন। এখন কোনটা আপনার জন্য সহজ হবে এই ব্যাপারটা তখন তাৎখনিত মাথায় না আসাটাই স্বাভাবিক। আর এই জন্যই আমি ক্যামতেসিয়া সাজেস্ট করলাম।

আচ্ছা আপনি যেহেতু পোস্টটি এত দূর পর্যন্ত পড়েছেন । আপনার জন্য কাজটি আরো একটু সহজ করে দিচ্ছি। আমিই কিছু খুব ভালো মানের টিউটোরিয়ালের লিঙ্ক এখানে দিয়ে দিলাম –

ভিডিও থেকে আর্নিংটা কিভাবে আসে ?

খুব ভালো প্রশ্ন ! ভিডিও থেকে কয়েকভাবে আপনি আর্ন করতে পারবেন। এর মধ্যে কয়েকটা মাধ্যম নিয়ে আমি কিছু বলার চেষ্টা করব –

AdSence Income:

এডসেন্স হলো গুগলের একটি এডভারটাইজিং প্রক্রিয়া। যেখানে বিশ্বের বড় বড় কম্পানি গুলো গুগলের কাছে তাদের কম্পানির এড দেওয়ার জন্য মিলিওন মিলিওন $ গুগলকে পে করে থাকে।

গুগল কি করে এই এড গুলো নিয়ে ? গুগলের কাছে যেহেতু ভিলিওন ভিলিওন ট্রাফিক আছে , তাই গুগল ঐ এড গুলোকে তার ভিলিওন ভিলিওন ট্রাফিকের কাছে বিভিন্ন মাধ্যমে হস্তান্তর করে থাকে। এডসেন্স এর সাথে ইউটিউবের মিল কোথায় ? মিল হচ্ছে ইউটিউব হলো গুগলের একটি ভিডিও প্লাটফর্ম।

আর গুগল এই ইউটিউবের মাধ্যমে বড় বড় কম্পানির এড গুলো আপনার আমার ভিডিওর মাধ্যমে ভিলিওন ভিলিওন মানুষের সামনে প্রেজেন্ট করে থাকে।

এখন এর মাধ্যমে আপনার ইনকাম কিভাবে আসে ? আপনি যখন একটি ভিডিও ইউটিউবে আপলোড দিলেন। সাপোস আপনার ঐ একটি ভিডিওতে ১ লাক্ষ ভিউ হলো।

এই এক লাখ মানুষের কাছে গুগল ঐ বড় বড় কম্পানির এড গুলো আপনার ভিডিওর মাধ্যমে সবার সামনে রিপ্রেজেন্ট করলো। এবং এই এক লাক্ষ মানুষের মাঝে ১০ হাজার মানুষ ভুল করে ঐ এড গুলোতে ক্লিক করল । এই ক্লিক করার কারনে ঐ ক্লিক করা এডের মালিকের কাছ থেকে গুগল কিছু কমিশন পেলো।

আর গুগল সেই কমিশন থেকে আপনাকেও ছোট একটা % দিয়ে দিলো। আপনার এই ছোট % টি মাস শেষে বড় একটা এমাউন্ট হয়ে যাবে । আর এভাবেই আপনি গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে ইউটিউব থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

আমি জানিনা আপনারা ভালোভাবে বুঝতে পারছেন কিনা। যদি বুঝে না থাকেন তাহলে আমি কিছু রিসোর্চ এখানে দিয়ে দিলাম। আপনার দেখে নিয়েন , আশাকরি বুঝে যাবেন।

Income Through Videos:

আমি আগেই ধরে নিয়েছিলাম যে আপনি একজন ভালো মানের ডিজাইনার। আর আপনি খুব ভালো ফটোশপ এবং ইলাস্টেটরের কাজ জানেন। এখন আপনি ইচ্ছে করলে আপনার খুব ভালো মানের কিছু ডিজাইন আপনি ইউটিউব এ ভিডিও এর মাধ্যমে মার্কেটিং করে সেল দিতে পারবেন এবং এভাবেও ভিডিও এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।

আর এর জন্য অবশয়ই আপনার কোন পারসোনাল একটি ওয়েবসাইট থাকতে হবে। সেল কি সত্যিই হবে ? কেন হবেনা সেল ? আপনার চ্যানেলটি ৫/৬ মাস ভিডিও আপলোড দিয়ে যাচ্ছেন আর এতদিনে আপনার সাপোস ১০ হাজার সাবস্ক্রাইবার হয়ে গেছে । আপনি এখন কোন ভিডিও আপলোড দিলেই প্রতিদিন গড়ে ১২ থেকে ২০ হাজার মানুষ আপনার ভিডিও দেখে।

এখন এই ২০ হাজার মানুষের কাছে যদি আপনি আপনার খুব ভালো মানের একটি ডিজাইন সেল দেওয়ার জন্য একটি রিভিও ভিডিও বানিয়ে মার্কেটিং করেন তাহলে ২০ হাজার মানুষের মধ্যে কি আপনি ৫০ টা সেল পাবেন না ? ১০০% পাবেন !

আর এই জন্যই অনলাইন হলো আর্নিং এর জন্য সবচেয়ে ভালো মাধ্যম । শুধু আপনার প্রথমদিকে প্রচুর সময় এবং পরিশ্রম করে যেতে হবে। কারন আপনি শুরু করার ১ সপ্তায় পর থেকেই আর্নিং পেতে শুরু করবেন না। ৫/৬ মাস মন দিয়ে লেগে থাকলে সাকসেস ১০০% আসবে।

FAQ

ভিডিও এর মাধ্যমে ইনকাম টপিক টি আজকের মত এখানেই শেষ করলাম। এছাড়া ভিডিও দিয়ে আরো অনেক মাধ্যমেই ইনকাম করা যায়। আজকে আর লিখতে ইচ্ছে করছেনা।

অন্য কোন পোস্টে আমি চেষ্টা করবো আরো ভালো কিছু মাধ্যম সম্পর্কে জানাতে। আর্টিকেল টি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন এবং কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট এর মাধ্যমে জানাবেন। ধন্যবাদ সবাইকে !!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here